২রা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ| ১৫ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ| ৬ই শাওয়াল, ১৪৪৫ হিজরি| সকাল ৮:৪১| গ্রীষ্মকাল|
Title :
অবশেষে মুক্তি পেল জিম্মি জাহাজ এমভি আবদুল্লাহ ও ২৩ নাবিক পহেলা বৈশাখ অর্থাৎ বাংলা নববর্ষ উদযাপন বাঙালির অসাম্প্রদায়িক ও সার্বজনীন উৎসব- তারেক শামস খান হিমু কলমাকান্দায় সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের তিনজনের মৃত্যু মাহে রমজানের আত্মশুদ্ধির মহান দীক্ষার মধ্য দিয়ে আসে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতরের আনন্দঘন মুহূর্ত – তারেক শামস খান হিমু মুজিবনগর সরকার গঠন ও স্বাধীনতার ঘোষণা পত্র মূলত আন্তর্জাতিক মহলে স্বাধীন বাংলাদেশের পূর্ণাঙ্গ বহিঃপ্রকাশ – তারেক শামস খান হিমু যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় অটোরিকশাচালক নিহত ঠাকুরগাঁও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ আপেলের যোগদান মাটিরাঙ্গা জোনের উদ্যোগে মানবিক সহায়তা প্রদান মা ও শিশু সংস্থা ফ্লোরিডা (USA)ও স্বপ্নের সিঁড়ি সমাজ কল্যান সংস্থার মাধ্যমে পবিত্র মাহে রমজানের ইফতার ও ঈদ সামগ্রী বিতরণ। শতাধিক সুবিধাবঞ্চিত, শিশুদের ঈদের নতুন জামা আর সালামী দিয়ে মুখে হাসি ফোটালো ‘আমাদের প্রিয় সৈয়দপুর’

বরিশাল নগরীতে অপরাধীদের সনাক্ত করবে ফেস ডিটেক্টর সফটওয়্যার

জামাল কাড়াল বরিশাল জেলা প্রতিনিধি।
  • Update Time : রবিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০২১,
  • 41 Time View

বরিশাল নগরীতে ২২৫ টি পয়েন্টে সিসিটিভি ৮,টি ফেস ডিটেকশন ও ৩৬০ ডিগ্রি আ্যাঙ্গেলের পিটিজেড ক্যামেরা চালু হয়েছে এতে ২৪ ঘন্টা নজরদারিতে থাকবে পুরো নগরী এতে ৯ সদস্যর প্রশিক্ষনপ্রাপ্তদের দিয়ে গঠন করা হয়েছে কমান্ড এ্যান্ড কন্ট্রোল সেন্টার অপরাধীদের শনাক্ত করবে পুলিশের ক্যামেরা। নগরজুড়ে সিসি ক্যামেরা বসানোর পাশাপাশি চালু করা হয়েছে ফেস ডিটেক্টর সফটওয়্যার। চিহ্নিত অপরাধীরা ক্যামেরার আওতায় আসলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে তা জানান দেবে পুলিশ কন্ট্রোল রুমে অপরাধ দমন ও সংঘটিত ঘটনার তথ্য উদঘাটনসহ চিহ্নিত অপরাধী মহানগরীতে ঢুকলেই সংকেত আসছে পুলিশের এই দপ্তরে।
বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার মো. রাসেল ‍জানান, আমাদের কন্ট্রোল সেন্টার প্রতিষ্ঠার মূল উদ্দেশই ছিল বরিশাল নগরীকে নিরাপদ রাখা এবং অপরাধীদের গমনাগমনকে যাতে নিয়ন্ত্রণ করা। মূলত মানুষ বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যানজট, চুরি, ছিনতাই, সামাজিক অপরাধসহ নানা দুর্ঘটনা নাগরিকদের বিপাকে ফেলছে। এসব ঠেকাতেই প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে মাঠে নেমেছে নগর পুলিশ।
অপরাধ দমনে সুধী সমাজ এই উদ্যোগকে স্বাগত জানালেও কারো ব্যক্তি স্বাধীনতা যেন ক্ষুণ্ণ না হয় সেদিকেও লক্ষ্য রাখার পরামর্শ দিয়েছেন বরিশাল সনাকের সভাপতি প্রফেসর শাহ সাজেদা।
এ বিষয়ে নগর পুলিশ বলছে, বরিশালে কেউ এখন আর অপরাধ করে পার পাবে না। অসংগতি যেখানেই ঘটুক, মুহূর্তেই সেখানে হাজির হবে পুলিশ।
বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, এটার মাধ্যমে কিন্তু আমরা অপরাধীদের যেমন করে চিহ্নিত করে ধরতে পারি আবার অপরাধ সংঘটনের ক্ষেত্রে ডেটারেন্ট হিসেবে কাজ করে।
এরই মধ্যে এই প্রকল্পে ছিনতাইয়ের নাটক, চুরি, সড়ক দুর্ঘটনাসহ অর্ধ শতাধিক রহস্য উন্মোচন হয়েছে। অপরাধ দমনে ৮৫ লাখ টাকা ব্যয়ে শিগগিরই আরও ৫০০ স্থান এমন প্রযুক্তির আওতায় আনা হচ্ছে বলে জানান পুলিশ কর্মকর্তারা।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category