১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ| ২৬শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ| ১৮ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি| বিকাল ৫:২৪| গ্রীষ্মকাল|

বিএমএসএফ’র ঐক্যের বিড়ম্বনা! সম্মানজনক আলোচনার বিকল্প নেই

রাকিবুল হাসান আহাদ, বিশেষ প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, নভেম্বর ২৫, ২০২১,
  • 117 Time View

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর আভ্যন্তরীণ সাংগঠনিক সৃষ্ট জটিলতা যেন সাংগঠনিক পর্যায়ে না থেকে যেন ব্যক্তিগত আক্রমণ চরিত্রহননে রুপ নিচ্ছে। যা করো জন্য কাম্য নয়।
শব্দ চয়নেই একজন ব্যক্তির সাধারন পরিচয়, ব্যক্তিত্ব ফুটে উঠে, এমন কি পারিবারিক ও বংশীয়, সামাজিক ও প্রাতিষ্ঠানিক কর্মদক্ষতা ও তার আসল পরিচয় ফুটে উঠেছে, অহংকার প্রতিহিংসা অতল গহ্বরে নিমজ্জিত করে আত্মসমালোচনার বিকল্প নেই, ক্ষমা মহত্ত্বের লক্ষণ ভূলগুলো শুধরে নেওয়ার সুযোগ থাকে কিন্তু নিজ বা নিজেদের ভূলগুলো নিয়ে অতিরঞ্জিত বাড়াবাড়ি বা নিত্য নতুন ভূলের জন্ম দেওয়া সমীচীন নয়, সংগঠনের সভাপতি একাধারে আহবায়ক আবার পরিচালনা পর্ষদের সদস্য, ভাগ্যবান ব্যক্তি তিনি, এবার প্রশ্ন থেকে যায় কোনটা বৈধ আর কোনটা অবৈধ পদ পদবী ব্যবহৃত হচ্ছে! সাংগঠনিক শৃঙ্খলা সংকট মোকাবেলায় যে যার মত এগিয়ে এসেছেন সকলের সম্মান জনক সমাধানেও এগিয়ে আসা উচিত ছিল, নিজেদের মধ্যে পারষ্পরিক দুরত্ব সৃষ্টি করার মত কথা বলে নয়, দুরত্ব কমিয়ে আনার আলোচনাই উত্তম এমন কথা বলা হয়েছে বার বার। এখানে গুটিকতক অতি উচ্চমানের বিচক্ষণ বড় নেতা মনে করে, তাদের কুরুচিপূর্ণ ভাষা কারো চরিত্র হননের চেষ্টা, অনবরত একই কথার চর্বিতচর্বন করে দুরত্ব সৃষ্টির পাঁয়তারা করে যাচ্ছেন, বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপ মেসেঞ্জারে অশালীন শব্দ চয়ন করা হচ্ছে।
জমি দখলের ন্যায় একটি সংগঠন দখলে নিয়ে শীর্ষ নেতা হওয়ার কুট কৌশলের বিকৃত মানুষিকতার পরিচয় দেয়া সমীচীন নয়। যদি কেউ করো এজেন্ডা বাস্তবায়নে সংগঠনকে ক্ষতিগ্রস্ত করার কাজে লিপ্ত হয়ে থাকেন তার জন্য আমার বলার কিছুই নাই, কারণ তার কাজই তো এটা, আর সংগঠন রক্ষার কাজ সংগঠকদের যারা এটাকে প্রকৃতই ভালবাসে।
সংগঠনের মূখপাত্র আহমেদ আবু জাফর বিএমএসএফ এর দীর্ঘ ১০ বছরের পথচলায় আপনারাই সাথে ছিলেন সাংবাদিকদের স্বার্থ রক্ষায় ভাল সাংবাদিক নেতা ছিলেন আছেন এমন বলেছেন এইতো ৫ নভেম্বর পর্যন্ত।
এ সংগঠনটি সকলের মাঝে সমাদৃত হতে দেখে পূর্ব পরিকল্পনা নিয়ই ঠুনকো অজুহাতে জাফরকে সরিয়ে নেতা হওয়ার স্বপ্নে বিভোর ব্যক্তির গোপন এজেন্ডা বাস্তবায়নে ত্যাগী পুরাতন কিছু নেতা না বুঝেই কজন শামিল হয়ে গেলেন। আর সেই নোংরা মনের একটি নেতা বিভিন্ন সময় আহমেদ আবু জাফরকে হেয় প্রতিপন্ন করে একের পর এক ফেসবুকে পোস্ট দিতে থাকে এমনকি চরিত্র হননের হলুদ সাংবাদিকতার বহিঃপ্রকাশ ঘটাতেও বাকী রাখেনি, যিনি এমনটা করছেন তিনি কতটুকু ভাল মানুষ আর কতটুকু মন্দ মানুষ তার বিচার সাংবাদিক ও সাংবাদিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আর ফেসবুক সমাজে বিচরনকারীদের নিকট রইল।

শিবলী সাদিক খান, সদস্য কেন্দ্রীয় কমিটি, ও সভাপতি ময়মনসিংহ জেলা বিএমএসএফ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category