৮ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ| ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ| ৮ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৫ হিজরি| বিকাল ৫:১৫| শরৎকাল|
Title :
দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নাগরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের মতবিনিময় ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গীতে ৩৭৫৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট সহ এক জন আটক গাইবান্ধার পলাশবাড়ী থানা পুলিশের হাতে ৯ জন আন্তঃজেলা মোটরসাইকেল চোর গ্রেফতার পূর্বধলায় শ্রেষ্ঠ ইউএনও শেখ জাহিদ হাসান প্রিন্স সদ্য যোগদানকৃত নাগরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বাংলাদেশ অনলাইন সাংবাদিক ফোরাম, নাগরপুর উপজেলা শাখার শুভেচ্ছা নারী সাংবাদিক নিহত: প্রধান অভিযুক্ত গাজীপুর থেকে গ্রেপ্তার পূর্বধলায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে বৃত্তি প্রদান কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ ও বিকাশের যৌথ উদ্দ্যোগে মোবাইল ও বিকাশ প্রতারণা বিষয়ে তদন্ত ও প্রতিরোধ পূর্বধলার শ্যামগঞ্জ ফকির বাড়ির পারিবারিক কবর থেকে ৪ টি লাশ চুরি গাইবান্ধার পলাশবাড়ীতে ৬৫ বছরের দাদা পুতির সাথে প্রথম শ্রেনীতে ভর্তির ঘটনাটি পড়ালেখার জন্য নয়

টাঙ্গাইলে প্রশংসায় ভাসছে জননেতা তারেক শামস্ খান হিমুর ব্যতিক্রমী প্রচারণা

কাজি মোস্তফা রুমি :
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, জুন ১, ২০২৩,
  • 261 Time View

টাঙ্গাইলে প্রশংসায় ভাসছে জননেতা তারেক শামস্ খান হিমুর ব্যতিক্রমী প্রচারণা

কাজি মোস্তফা রুমি: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ভোটের রাজনীতিতে অপপ্রচারের বিরুদ্ধে সরব হওয়া এবং সরকারের উন্নয়ন অর্জনকে মানুষের সামনে তুলে ধরাকে গুরুত্ব দেওয়ার কথা সবসময়ই বলে আসছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। কিন্তু সারাদেশে দলের এই পদক্ষেপ শুরু না হলেও ব্যতিক্রমী প্রচারণায় নেমেছেন দক্ষিণ টাঙ্গাইলের গর্ব, নাগরপুর দেলদুয়ারের গণমানুষের নেতা, সময়ের সাহসী ব্যক্তিত্ব, টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের অন্যতম প্রভাবশালী কর্মীবান্ধব জননেতা তারেক শামস্ খান হিমু

১৪ বছর আগে দেশের পরিস্থিতি কোথায় ছিলো, আর সেখান থেকে কিভাবে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলেছে, তার তুলনামূলক চিত্র তুলে ধরে সাধারণ মানুষের কাছে যাচ্ছেন তিনি। তাদের অভিযোগ-অনুযোগ থাকলে তা শুনছেন এবং দিচ্ছেন সমাধানের আশ্বাসও।

টাঙ্গাইল-৬ নির্বাচনী আসনের কোনো না কোনো এলাকায় গিয়ে একেবারে তৃণমূল পর্যায় মানুষের কাছে সরকারের উন্নয়ন নিয়ে তাদের সঙ্গে কথা বলছেন, তাদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন। তার এই ব্যতিক্রমী প্রচারণা স্থানীয় নেতাকর্মীদের প্রশংসায় ভাসছে। বিষয়টি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সাড়া ফেলেছে।

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতাকর্মীদের মানুষের কাছে গিয়ে সরকারের উন্নয়ন-অর্জন তুলে ধরতে নির্দেশ দেন। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যতিক্রমী এই প্রচারণায় নামেন জননেতা তারেক শামস্ খান হিমু। তার এই প্রচারণা এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।

দলের উন্নয়ন-অর্জন এভাবে সাধারণ মানুষের কাছে উপস্থাপনকে গর্বের সঙ্গে বিবেচনা করছেন নাগরপুর দেলদুয়ারের তৃণমূল আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ।

তৃণমূল আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা গণমাধ্যমকে বলেন, এমন প্রচারণা সারাদেশেই করা দরকার। নির্বাচনকে সামনে রেখে বিরোধী রাজনৈতিক পক্ষ নেতিবাচক প্রচারণায় নেমেছে। তারা জনগণকে ভুল বোঝাচ্ছে। এজন্য সঠিক তথ্য জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে। এদিক দিয়ে আমরা বলবো জননেতা তারেক শামস্ খান হিমু ভাই খুব ভালো উদ্যোগ নিয়েছেন।

স্থানীয় তৃণমূল আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দরা আরও বলেন, গত ১৪ বছরে যত উন্নয়ন হয়েছে বাংলাদেশের মানুষ আগে কখনো এই অর্জন দেখেনি। বিশেষ করে সড়ক যোগাযোগ খাতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন হয়েছে। সারাদেশেই শক্তিশালী যোগাযোগ নেটওয়ার্ক গড়ে উঠেছে। বিষয়গুলো বেশি বেশি প্রচারণা করা দরকার। জননেতা তারেক শামস্ খান হিমুর এই উদ্যোগ প্রশংসার দাবিদার।

জননেতা তারেক শামস্ খান হিমুর এই উদ্যোগ এরই মধ্যে নেতাকর্মীদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে গেছে জানিয়ে তৃণমূলের নেতৃবৃন্দরা বলেন, আমরা চাই, সারা দেশে এভাবে প্রচার প্রচারণা হোক। এতে আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি আরও বাড়বে।

প্রচারণায় নিজস্ব অর্থায়নে দেশের সর্ববৃহৎ পদ্মা সেতু নির্মাণ, মহাকাশে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট স্থাপন, সমুদ্র সীমানা বিজয়, কর্ণফুলী নদীর তলদেশে বঙ্গবন্ধু ট্যানেল নির্মাণ, আইটি শিল্প ও আইটি সেক্টর আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উন্নতকরণ, দেশের সব মানুষকে দ্রুত সময়ের মধ্যে করোনার টিকার আওতায় আনা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সফলতার সঙ্গে করোনা মোকাবিলায় দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম ও এশিয়ার ৫ম স্থান অবস্থান, করোনাকালীন অসহায়দের খাদ্য ও বিভিন্ন প্রণোদনার মাধ্যমে ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে সহযোগিতা করা, বর্তমানে বাংলাদেশের ১ কোটি পরিবারকে টিসিবির মাধ্যমে ন্যায্যমূল্যে চাল-ডাল তেলসহ প্রয়োজনীয় সহযোগিতার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। অসংখ্য গ্রামীণ সড়ক ও কালভার্ট নির্মাণ, ৩২০০টি মাদ্রাসা ভবন নির্মাণ, দেশের গুরুত্বপূর্ণ মহাসড়কসহ ঢাকা-টাঙ্গাইল সড়কটি ৪ লেনে উন্নীতকরণ, এলিভেটেড এক্সপ্রেস হাইওয়ে নির্মাণ, মেট্রোরেল প্রকল্প, রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, পায়রা তাপবিদ্যুৎ, রামপাল কয়লা বিদুৎকেন্দ্র নির্মাণসহ দেশের জনগণকে শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় আনয়ন, বিদ্যুৎ উৎপাদন ৩২৬৮ মেগাওয়াট থেকে ২০,০০০ মেগাওয়াটে উন্নীতকরণ, পায়রা গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ, দারিদ্র্যের হার ১০ ভাগে নামিয়ে আনা, মুক্তিযোদ্ধা সম্মানি ভাতা প্রদান, বয়স্ত, বিধবা ও প্রতিবন্ধি ভাতা প্রদান, নিম্ন আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীতকরণ, নারীর অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়ন, গরীব ও নারী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান, বছরের প্রথম দিনেই বিনামূল্যে বই বিতরণ, স্বাক্ষরতার হার বৃদ্ধি ৭৬% এ উন্নতীকরণ, রপ্তানি আয় ও কর্মস্থান বৃদ্ধি ও মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি যা প্রতিবেশী দেশ থেকে অনেক এগিয়ে, বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে বিভিন্ন ইকোনমিক জোন নির্মাণ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ, প্রতিটি উপজেলায় মডেল মসজিদ নির্মাণ, বৈদেশিক মুদ্রার রেকর্ড রিজার্ভ বৃদ্ধি, কৃষিতে অভাবনীয় সাফল্য ও দেশকে খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ করা, শত শত সেতু সড়ক নির্মাণ, এক্সপ্রেস ওয়েসহ সরকারের সব উন্নয়ন অর্জন উঠে এসেছে।

নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তারেক শামস্ খান হিমু শুধু সরকারের উন্নয়ন অর্জনের প্রচারণায় নেমেছে বিষয়টি এমন নয়, যেকোনো দুর্যোগ-দুর্বিপাকে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন সবসময়। এলাকার সাধারণ মানুষের যে কোন বিপদের কথা শুনলে তিনি যেভাবে সম্ভব তাদেরকে সহযোগিতা করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা বিশেষভাবে উল্লেখ করছেন- নাগরপুরের সাড়ে তিন লক্ষ মানুষের প্রাণের দাবী ধলেশ্বরী সেতু বাস্তবায়নের লক্ষ্যে তিনি ধলেশ্বরী সেতু বাস্তবায়ন কমিটি নামক একটি সংগ্রাম কমিটি গড়ে তুলে রাজপথে কঠিন আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়েন। এই আন্দোলনকে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জলিল এবং বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জননেতা ওবায়দুল কাদের,এমপি সরাসরি সমর্থন করে ঢাকা প্রেসক্লাবের সামনে উন্মুক্ত রাজপথে মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। যে আন্দোলনের ফসল হিসেবে এই ধলেশ্বরী সেতু নাগরপুরের বুকে আওয়ামীলীগ সরকারের নেতৃত্বে বাস্তবায়িত হয়েছে।

এছাড়া বাংলাবাজার সুত্রাপুরে বাংলাদেশ পুস্তক বাঁধাই মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদে তিনি দীর্ঘদিন আহবায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে নাগরপুরস্হ শ্রমিকদের দাবি আদায়ের লক্ষ্যে কাজ করে গেছেন।

এছাড়া বাংলাদেশের বিভিন্নস্থানে অবস্থিত জুট মিল বিশেষ করে লতিফ বাওয়ানী জুট মিল, ডেমরা কাশেম জুট মিল, নরসিংদী ইউএমসি জুট মিল, পলাশ জুট মিলে কর্মরত নাগরপুরের হাজার হাজার শ্রমিকদের ন্যায্য দাবি আদায়ের লক্ষ্যে দীর্ঘদিন কাজ করে গেছেন, যারা বর্তমান সময়ে তার এই প্রচারণায় অংশগ্রহণ করছেন।

ব্যতিক্রমী এই প্রচারণা নিয়ে জানতে চাইলে জননেতা তারেক শামস্ খান হিমু গণমাধ্যমকে বলেন-  পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে যা কিছু অর্জন সব আওয়ামী লীগের হাত ধরে এসেছে। গত ১৪ বছরে যদি বিবেচনা করেন, প্রতিটি ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অভূতপূর্ব উন্নয়ন দেখেছে দেশের মানুষ। বাংলাদেশকে উন্নয়নের রোল মডেল স্বীকৃতি দিয়ে বিশ্বসেরা গণমাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করে বিভিন্ন প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু দেশে বিএনপি-জামায়াত ষড়যন্ত্রের রাজনীতিতে নেতিবাচক প্রচারণা চালাচ্ছে। এজন্য মানুষের কাছে উন্নয়ন অর্জনের সঠিক তথ্য তুলে ধরা প্রয়োজন। সেই বিষয়টি বিবেচনা করেই আমি মানুষের কাছে যাচ্ছি, তাদের কাছে সরকারের উন্নয়ন অর্জন তুলে ধরে নৌকায় ভোট চাচ্ছি। একজন কর্মী হিসেবে এটা আমার দায়িত্ব বলে মনে করছি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category